- সচেতনতা

মাসিকের স্বাভাবিক ও অস্বাভাবিক লক্ষণ

পৃথিবীর সব মেয়েরই মাসিক হয়ে থাকে। তবে একেক দেশের আবহাওয়া, খাদ্যাভাস ও পারিপার্শ্বিকতা ভেদে মাসিক শুরু হওয়ার বয়স, শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তনগুলোর তারতম্য ঘটে। লবনাক্ত আবহাওয়ার এলাকার মেয়েদের মাসিক সাধারণত ৯ থেকে ১৩ বছর বয়সে হয়ে থাকে। মাসিক কোন অসুখ নয়, এটি একটি স্বাভাবিক ও প্রাকৃতিক বিষয়। মাসিকের কোন লক্ষণগুলো স্বাভাবিক আর কোনগুলো স্বাভাবিক নয় তা বুঝতে পারাটা খুব জরুরী। তা না হলে নিজের সঠিকভাবে যত্ন নেওয়া ও রোগবালাই থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব হবে না।

পর্যাপ্ত জ্ঞানের অভাবে অনেকে জানেন না যে তার মাসিক স্বাভাবিক নিয়ম মেনে হচ্ছে কিনা। এজন্য নিজের পরিবার ও বন্ধুবান্ধবীদের সাথে এ নিয়ে আলোচনা করা দরকার। তাহলে মাসিক বিষয়ে নানা তথ্য জানা যাবে।

বয়ঃসন্ধিকালে মাসিকের শুরু হয়। শুরুর দুই বছর অনিয়মিতভাবে হলেও সাধারণত মাসিকচক্র ২৮ দিন পর পর ঘটে। তবে মাসিক হওয়ার নিদিষ্ট তারিখের ৪০ দিন পরও যদি মাসিক শুরু না হয় এবং যদি তা নিয়মিত ঘটতে থাকে তাহলে তা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। এজন্য পরামর্শ নিতে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে যাওয়া দরকার।

মাসিকের সময়কাল:
স্বাভাবিক নিয়মে মাসিকের সময়কাল ৩ থেকে ৭ দিন পর্যন্ত। অনেকক্ষেত্রে ১০ দিন পর্যন্তও হতে পারে। তবে সাধারণত ৭ দিন পরেও যদি রক্তপ্রবাহ না থামে এবং বেশি পরিমাণে রক্তপাত হয় তবে সেটা অস্বাভাবিক।

রক্তপ্রবাহের পরিমাণ:
এক এক জন নারীর মাসিকের রক্তপ্রবাহের পরিমাণ এক এক রকম। কারো অনেক বেশি, কারো বা মাঝারি আবার কারো খুব কম পরিমাণে। সাধারণত ১০ থেকে ৮০ মিলিলিটার (২ থেকে ৩ টেবিল চামচ) রক্তপাত হয়ে থাকে। যদি এর থেকে বেশি রক্তপাত হয়, কালো ও জমাট রক্তপাত এবং মাসে একাধিকবার রক্তপাত হয় তবে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া প্রয়োজন।

পরবর্তী মাসিকের মধ্যবর্তী সময়কাল:
সাধারণত বর্তমান ঋতুস্রাব থেকে পরবর্তী ঋতুস্রাবের মধ্যবর্তী সময়কাল হয়ে থাকে ২৮ দিন। তবে অনেকক্ষেত্রে তা ২১ থেকে ৩৫ দিন হয়ে থাকে যা স্বাভাবিক। কিন্তু ঋতুস্রাব বা পিরিয়ডের এই সময়কাল যদি ২১ দিনের কম অথবা ৪২ দিনের বেশি হয় তবে তা অস্বাভাবিক।

মাসিকের সময় স্বাভাবিক লক্ষণ:

ক্ষুধা লাগবে
মেজাজখিটখিটে থাকবে
হালকা হালকা মাথাব্যথা থাকবে
মুখে ব্রণ হওয়ার সম্ভবনা থাকে
ঘুমের সমস্যা হতে পারে
মাঝে মাঝে বমি ভাব হতে পারে
তলপেটে ব্যথা

মাসিকের সময় অস্বাভাবিক লক্ষণ:

মাত্রাতিরিক্ত রক্তপাত
৭ থেকে ১০ দিনের বেশি সময় ধরে রক্তপাত
মাসে একাধিকবার মাসিক হওয়া
তলপেটে অত্যধিক ব্যথা
মাসিক চলাকালীন সময় জ্বর

মাসিকের সময় অস্বাভাবিক লক্ষণ দেখা দিলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

তথ্য সূত্র: আপনার ডক্টর

TG Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *